আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জিম্বাবুয়ের সাবেক প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবেকে পদত্যাগে বাধ্য করতে দেশটির সামরিক বাহিনীর নেয়া পদক্ষেপ সাংবিধানিক বলে ঘোষণা করেছে দেশটির এক শীর্ষ আদালত।আদালতের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দেশটির রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত সম্প্রচার সংস্থা জানিয়েছে, “সাবেক প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের ঘনিষ্ঠজনের মাধ্যমে দেশের ক্ষমতা দখলের প্রচেষ্টাকে থামিয়ে দেয়ার সেনাবাহিনীর পদক্ষেপ ছিল সাংবিধানিক।”আদালত তার আদেশে আরো বলেছে, “অনির্বাচিত ব্যক্তিরা যাতে ক্ষমতায় আসতে না পারে তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সেনাবাহিনীকে দেশটির কর্তৃত্ব গ্রহণ করতে হয়েছিল।” গত সপ্তাহে ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়াকে বরখাস্ত করেন মুগাবে। তাকে এতদিন মুগাবের উত্তরসূরি ভাবা হলেও সম্প্রতি তার জায়গায় ফার্স্ট লেডি গ্রেস মুগাবের নাম সামনে চলে আসে।আদালত তার পর্যবেক্ষণে আরো বলেছে, ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়া এবং নিজের স্ত্রী গ্রেসের মধ্যে সৃষ্ট ক্ষমতার দ্বন্দ্বকে ঘিরে নানগাগওয়াকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত বেআইনি ছিল। জিম্বাবুয়েতে ৩৭ বছরের স্বৈরশাসনের অবসান ঘটিয়ে মুগাবে অবশেষে গত ২৩ নভেম্বর ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ান। দেশটি সেনাবাহিনী রাজধানী হারারের সড়ক এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নিয়ন্ত্রণে নেয়ার পাশাপাশি ৯৩ বছর বয়সি মুগাবেকে গৃহবন্দি করার কয়েক দিন পর মুগাবে পদত্যাগে বাধ্য হন।

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here